আর্টিকেল রাইটিং টিপস

Published Date: Saturday, September 7, 2019

আর্টিকেল রাইটিং/কন্টেন্ট রাইটিং/স্ক্রিপ্ট রাইটিং শেখার জন্য অনেকেই নক দেন। আমি নিজেকে খুব জানা-বুঝা-জ্ঞানী ব্যাক্তি মনে করিনা।
তবুও যারা নিজেদেরকে একেবারে এন্ট্রি লেভেলের মনে করেন, মানে শুন্য থেকে শিখতে চান তাদের কে নিজের অভিজ্ঞতার ক্ষুদ্র জ্ঞান দিয়ে কিছু টিপস দেয়াই যায়, যা একান্তই আমার নিজস্ব মতামত। বিশেষ করে যারা শুরু করতে গিয়ে কিভাবে কি হবে ভেবে পাচ্ছেন না, তাদের জন্য একদম সাদামাটা কয়টা টিপস।

১। প্রথমত, রাইটিং পেশাটা এতোটা ধৈর্যের যে, এখানে প্রথম রিকোয়ারমেন্ট/যোগ্যতা ই ধৈর্য। অনর্গল মাথা থেকে কন্সেপ্ট, সেন্টেন্স, ক্রিয়েটিভিটি নিউ নিউ ওয়েতে প্রেজেন্ট করার জন্য যথেষ্ট ধৈর্য লাগবে।

২। ইংলিশ স্কিল। আমি বলছিনা শুরুতেই ইংলিশে পিএইচডি করে আসতে হবে, তবে গ্রামার সম্পর্কে ধারণা ক্লিয়ার থাকতে হবে মাস্ট। কারণ সেন্টেন্স মেকিং এ গ্রামার অনুযায়ী স্ট্রাকচার করতে না পারলে, যত ভোকাবুলারি ই থাকুক, সেন্টেন্স খাপছাড়া লাগবে।

গ্রামার না জেনে, ইংলিশ চলিত রীতিতে ফ্লুয়েন্ট কথা বলতে জানলেও রাইটিং এর ক্ষেত্রে আপনি সুবিধা করতে পারবেন না। (আমি মনে করি)

৩। কিওয়ার্ড এবং সার্চ টার্ম সম্পর্কে পরিস্কার ধারণা।
ধরুন আপনার কিওয়ার্ড best fishing reel, একটা কিওয়ার্ড নিয়ে ভালো মানের তথ্যবহুল আর্টিকেল লিখতে সেইম কিওয়ার্ডের সাথে রিলেটেড শব্দ দিয়ে ভিন্ন ভিন্ন উপায়ে সার্চ করতে জানতে হবে। “Best fishing reel buying guide” এটুকুর আন্ডারে হয়তো Size নিয়ে লিখতে গিয়ে কম ইনফো পেতে পারেন। তখন সার্চ করতে হবে “sizes of fishing reels” “How many sizes are available for fishing reels” তখন কিছু এক্সেক্ট আর্টিকেল পাবেন সাইজ নিয়েই।

তাই সার্চটার্ম বুঝতে হবে। আপনি গুগলকে জিজ্ঞেস করতে জানলে গুগল উত্তর দিবেই। আমি এমন কিছু রাইটার ও দেখেছি, যারা মেইন কিওয়ার্ড দিয়ে সার্চ দিয়ে ইনফরম্যাশন কম বলে ক্লেইম করে ক্লায়েন্ট কে।

৪। শুরু করুন ব্লগ রাইটিং দিয়ে, সাধারণত বায়োগ্রাফি দিয়ে। এক্ষেত্রে কমপ্লিকেশন কম থাকবে, আর পছন্দের ব্যাক্তিত্ব নিয়ে লিখতেও মজা পাবেন। তারপর ধীরে ধীরে জটিল টপিকের দিকে যান।

৫। আপনার টপিকের সার্চ রেজাল্টের প্রথম ১০ টা রেজাল্ট ওপেন করুন কমপক্ষে। ১০ টাই পড়ুন, অথবা চোখ বুলান। আপনি কি চান এবং এগুলা থেকে কি কি নেয়া যায় তা নোট ডাউন করুন (কপি নয়, আইডিয়া নিন)।

৬। আর্টিকেল ভাঙুন, মানে ছোট ছোট অংশে ভাগ করুন আপনার নোট করা অংশগুলোকে। তারপর সময় নিয়ে ছোট ছোট অংশগুলো নিয়েই লিখুন, পারলে হাবিজাবি লিখুন, মজা করুন, প্রবাদ দিন তারপর কেটে ফেলুন, অসুবিধা নাই। আর কিছু না হোক, আপনার লিখায় স্বতঃস্ফূর্ততা আসবে। প্রয়োজনে আপনি ১০ দিনে ১ হাজার ওয়ার্ড লিখুন। মনে রাখবেন আপনি শিখছেন, আর শিখায় কোন অস্থিরতা-তাড়াহুড়া নেই।

৭। লিখতে হলে পড়তে হয়, এটাই নিয়ম। দিনে অন্তত ১ ঘন্টা বরাদ্দ করুন ইংলিশ পড়ার জন্য (এবং শোনার জন্য)। আমি ফ্লুয়েন্ট লিখার জন্য কয়েকটা সাইট পড়ার চেষ্টা করি, Neil Pattel, backlinko আমার প্রিয় দুইটা সাইট। তাদের লিখার ধরন সিম্পল এন্ড এট্রাক্টিভ। ইউটিউবে সার্চ দিলে অনেক রিসোর্স পাবেন, তবে শর্ট টাইমে ইংলিশ শেখার কোন টাইটেল দেখে ক্লিক করে লাভ নাই। ভাষা শর্ট টাইমে আত্মস্থ হয়না।

৮। ছোট ছোট সেন্টেন্স লিখুন, প্রয়োজন নেই রেলগাড়ির মত লম্বা সেন্টেন্সের। সাধারণত ২০ ওয়ার্ডের বেশি সেন্টেন্স প্রায় অগ্রহণযোগ্য ধরে গুগল, মানে অপছন্দ করে। আর এতে রিডএবিলিটি কমে যায়। তাই শুরুর দিকে আপনি ক্লাস ফাইভের বাচ্চার মত সেন্টেন্স লিখুন (আজকালকার ফাইভের বাচ্চারা বহুৎ ফাস্ট, আমাদের যুগের ফাইভের বলছি 😛), সমস্যা নেই। তবে there are, this is, normally, usually এই টাইপ ওয়ার্ড দিয়ে আর্টিকেল শুরু করবেন না। লিখার সৌন্দর্য নষ্ট হয়।

৯। ইন্ট্রো লিখার ব্যাপারে ক্রিয়েটিভ হোন। প্রয়োজনে ইন্ট্রো সবার শেষে লিখুন, এতে আপনি ইন্ট্রোতে অনেকটা এক্সপার্ট/সমঝদার টোন আনতে পারবেন। কারণ একটা টপিকে বিশাল আর্টিকেল লিখার পর আপনিও এক্সপার্ট হয়েই গেছেন। যা রিডারকে আট্রাক্ট করতে সাহায্য করবে।

১০। একেবারেই যাদের ভোকাবুলারি কম, তাদের জন্য একটা বিশেষ টিপস। গুগল ট্রান্সলেটর কে খাটান। আপনি যা লিখতে চান তা বাংলায় টাইপ করে সেখান থেকে ইংলিশ ট্রান্সলেট করুন। হয়তো গ্রামাটিক্যালি ইনকারেক্ট রেসাল্ট আসবে, কিন্তু আপনি আপনার গ্রামার স্কিল দিয়ে সেই সেন্টেন্সকে সাইজে আনতে পারবেন। অন্তত আপনার ডিজায়ার ওয়ার্ডটির ইংলিশ মিনিং, সিনোনিম তো পাবেন।

আমি প্রাথমিক ভাবে শুরু করার জন্য এই ১০ টাই লিখলাম। কোথাও কোন ভুল হলে মাফ চেয়ে নিচ্ছি। নির্দ্বিধায় শুধরে দেবেন ভুল গুলো।

আমি খুব সরলভাবে লিখার চেষ্টা করেছি ব্যাপারগুলা। কোন প্রশ্ন থাকলে করবেন, আমি যেটুকু বুঝি উত্তর দিবো, এবং গ্রুপে যারা সিনিয়র আছেন উনারাও দেবেন আশা করি।

Courtesy: Taisiya Mostafa

ধন্যবাদ ❤

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Popular posts:

google ad

Calender

November 2020
M T W T F S S
 1
2345678
9101112131415
16171819202122
23242526272829
30